No Widgets found in the Sidebar
অনলাইনে ইনকাম করার সেরা ১০টি উপায়



 

আসসালামু আলাইকুম ভিওয়ার্স কেমন আছেন সবাই। অনলাইন ইনকাম দুনিয়ায় আপনাকে স্বাগতম।

আজকের এই পোষ্টটি হলো তাদের, যারা ঘরে বসে হালকা মাথা খাটিয়ে হাজার হাজার টাকা ইনকাম করতে চায়।



তবে পোষ্টটি শুরু করার আগে আপনাকে বলতে চাই পোষ্টের ভিতরে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য থাকবে, তাই পোষ্টটি সুন্দরভাবে পুরোটা পড়বেন না হলে অনলাইন জগতে হোঁচট খাবেন।

অনলাইনে যারা নিজের ক্যারিয়ার গড়তে চায় তাদের মধ্যে ৮০ ভাগ মানুষই ব্যার্থ হয়। মাত্র ২০ ভাগ মানুষ অনলাইন থেকে ইনকাম করতে সফল হয়।

অনলাইনে ইনকাম করাটা আমরা যতটা সহজ মনে করি না কেনো,আসলে এটা ততটা সহজ নয়। এখানে অনেক জামেলা থাকে৷

তবে অনলাইনে ইনকাম করাটা নতুনদের কাছে কঠিন বলে মনে হলেও, যারা অভিজ্ঞ তাদের কাছে এটা কোনো ব্যাপারই না।

তবে আপনি নতুন  বলে কঠিন ভেবে হাল ছেড়ে দিবেন তা ঠিক হবে না।

কারন এখনকার অভিজ্ঞরা একটা সময় আপনার মতোই নতুন ছিলো। তাই আপনার উচিত এখন থেকেই অনলাইনে একটা জায়গা করে নেওয়া।



অনলাইনে ইনকাম করতে হলে আগে কয়েকটা বিষয় আপনার থাকতে হবে। যেমনঃ-

১. ধৈর্য।

২. সময়।

৩.মনোযোগ।

৪.মোবাইল অথবা কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট সংযোগ।

ধৈর্য

অনলাইনে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ হলো ধৈর্য। আপনার যদি ধৈর্যই না থাকে তাহলে অনলাইনে কেনো কোথাও সফলতা পাবেন না।

আপনিই যেহেতু নতুন তাই এই সেক্টর সম্পর্কে জানতে আপনার অনেক ধৈর্য লাগবে।

আপনি অনেক সুন্দরভাবে কাজ করবেন,সব ঠিক আছে, দেখবেন তারপরেও হচ্ছে না। এমন পরিস্থিতিতে আপনার ধৈর্য থাকা দরকার।

কারন এখন হচ্ছে না তা হলে কি হয়েছে পরবর্তীতে তো হতে পারে। তাই ধৈর্য সহকারে আবার কাজে লেগে থাকা উচিত।

সময়

আপনি যদি ঘরে বসে অনলাইন থেকে প্রতি মাসে হাজার- লক্ষ টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে এর পিছনে আপনার অনেক সময় ঢালতে হবে৷

আপনাকে অনেক বিষয় সম্পর্কে জানতে হবে,জাচাই-বাছাই করতে হবে।

অনলাইনে তো অনেকগুলো আয়ের সেক্টর থাকে।এখন আপনি যেই সেক্টরে ক্যারিয়ার গড়তে চান আপনাকে তো আগে সেই সেক্টর সম্পর্কে জানতে হবে।

কিভাবে শুরু করবেন,কিভাবে কাজ করবেন কি প্রয়োজন আরও কত কী? আর এগুলো জানতে তো আপনাকে অনেক সময় দিতেই হবে।

মনোযোগ

ভাই আপনি যাই করেন না কেনো আপনার যদি মনোযোগই বা না থাকে তাহলে আপনি কিভাবে শিখবেন। আপনি যদি মনোযোগী না হন আপনি যতই সময় দেন না কেনো কাজ হবে না।

তাই আপনার ভিতর জেদ থাকতে হবে। আমাকে অনলাইন থেকে ইনকাম করতেই হবে এমন মনোবল নিয়ে ধৈর্য ও মনোযোগ এবং সময় নিয়ে কাজ শিখতে ও করতে হবে। তবেই আপনি ইনকাম করতে পারবেন।

প্রিয় বন্ধুরা আমি যদি ইচ্ছে করতাম খুব সর্টকার্টভাবে অন্যদের মতো লেখা ঘুছিয়ে আনতে পারতাম। কিন্তু আমি নিজের অভিজ্ঞতার আলোকে আপনাদের কাছে সঠিক বিষয়টা তুলে ধরলাম।

আপনি সব জায়গায় সফলতার গল্প শুনবেন, কিন্তু কেউ ব্যার্থতার গল্প বলে না।

কিন্তু আমি চাই অনলাইন ইনকামের সফলতার পাশাপাশি ব্যার্থটাকেও আপনি জানুন। তাই আমার লেখা বড় হচ্ছে এর জন্য আমি দুঃখীত।

অনলাইনে ইনকাম করার  সেরা ১০টি উপায় নিয়ে আলোচনার করার আগে  আমি আবারও বলচ্ছি আপনার যদি ধৈর্য না থাকে তাহলে এই পোষ্টটি আপনার নয়।

একমাত্র যারা ধৈর্য ধরে কাজ করার মনোবল নিয়ে অনলাইনে বড় একটা স্থান গড়তে চান, এই পোষ্টটি শুধু তাদের জন্য



  সেরা ১০টি উপায় 

১০.অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

অনলাইনে ইনকাম করার জন্য সব থেকে সহজ মাধ্যমের নাম উঠলে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কে বাদ দেওয়া যায় না।

আপনি ঘরে বসেই বিভিন্ন কোম্পানির প্রডাক্ট বেঁচে দিয়ে মাসে হাজার হাজার টাকা ইনকাম করতে পারেন অ্যাফিলিয়েট করে।

তবে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করার আগে প্রথমে অভিজ্ঞদের কাছ থেকে বিভিন্ন ট্রিকস যেনে নিবেন। অনলাইনে অনেক কোর্স আছে যেগুলো করার মাধ্যমে আপনি সফল অ্যাফিলিয়েটার হতে পারেন।

৯. ডিজিটাল মার্কেটিং

২০২২ সালের এই দীনে ডিজিটাল মার্কেটিং আকাশ চুম্বি। আপনি যদি ডিজিটাল মার্কেটার হন তাহলে বিভিন্ন কোম্পানির সাথে চুক্তি করে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারেন।

বাংলাদেশের অনেক মানুষ দেশে বসেই অনেক কোম্পানির ডিজিটাল মার্কেটার হিসেবে কাজ করচ্ছে।

৮.কন্টেন্ট লিখে ইনকাম

কন্টেন্ট লিখে আয় করাটা এখন বিশ্বব্যাপি জনপ্রিয়। বিদেশি অনেক সাইট আছে যেখান থেকে আপনি ইংরেজিতে কন্টেন্ট লিখে মাসে হাজার হাজার টাকা আয় করতে পারেন।

তবে যারা ইংরেজিতে দুর্বল তারা বাংলা ভাষায় লিখে ইনকাম করার অনেক ভালো ভালো সাইট আছে সেখান থেকে ইনকাম করতে পারেন।

তবে আমার মতে “টেকটিউনস ” সব থেকে বিশ্ব্যস্থ সাইট যেখানে কন্টেন্ট লিখে আপনি সফল হতে পারেন।

৭.অনলাইন কোচিং সিস্টেম 

বর্তমান সময় এসে ইন্টারনেটের কল্যানে শেখার অন্যতম মাধ্যম হয়ে উঠেছে অনলাইন কন্টেন্ট সমূহ।

আপনি যেই বিষয়ে দক্ষ সেই বিষয় কোর্স করে ইন্টারনেট থেকে হাজার হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন।কারন বর্তমান সময়ে অনলাইন কোর্সের ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে।

৬. সোশ্যাল মিডিয়া থেকে ইনকাম

একটা সময় কেউ কখনই চিন্তা করে নাই যে ফেসবুক, ইনস্ট্রাগ্রাম ইত্যাদি সাইট থেকে ইনকাম করা যাবে।

কিন্তু বর্তমানে এই প্লাটফর্ম  থেকে মানুষ প্রতিনিয়ত হাজার হাজার টাকা আয় করে নিচ্ছে।

অনলাইনে ইনকাম এতোই সহজ হয়ে দাড়িয়েছে যে এখন আপনি ঘরে বসেই সোশ্যাল মিডিয়া থেকে টাকা আয় করতে পারেন খুব সহজেই।



৫.ছবি বিক্রি করে ইনকাম

ছবি বিক্রি করে ইনকাম বাংলাদেশে তেমন জনপ্রিয় না হলেও, এদেশের অনেকে এর থেকে মোটা অংকের টাকা আয় করে নিচ্ছে।

আপনার হাতের মোবাইলটা দিয়ে এবং একটা কম্পিউটারের সাহায্য Adobe stock, sutter stock ইত্যাদি সাইটে ছবি বিক্রি করেও একটা ভালো টাকা আয় করতে পারেন।

৪. ই-কমার্সের মাধ্যমে ইনকাম

বন্ধুরা আপনি যদি নিজের ইনকামের জন্য  বড় একটা রাস্তা তৈরি করতে চান তাতে ই-কমার্সের জুরি নেই।

অনেক উদ্যোক্তা রয়েছে যারা ই-কমার্সের মাধ্যমে গরীব থেকে বিলিয়নিয়ার হয়ে গেছে।

২০২২ এ এসে মানুষ এখন অনলাইন কেনা কাঁটার দিকে বেশি ঝুঁকচ্ছে৷ এখন ঘরে বসেই মানুষ কেনা কাটা করচ্ছে।

তাই আপনি যদি সফল হতে চান তাহলে ই-কমার্স আপনার জন্য শ্রেষ্ঠ উপায়।

৩. ফ্রিল্যান্সিং করে ইনকাম

বন্ধুরা ফ্রিল্যান্সিং শব্দটির সাথে আমরা কম বেশি সবাই পরিচিত । ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরে প্রতি বছর বাংলাদেশিরা দাপটের সাথে কাজ করে আসচ্ছে।

অনলাইন ফ্রিল্যান্সিংয়ের পথ খুব সহজ করে দিয়েছে। অনলাইনের বিভিন্ন প্লাটফর্ম যেমন ফাইবার,ফ্রিল্যান্সার আপওয়ার্ক ইত্যাদি সাইটের মাধ্যমে  অনেকে ঘরে বসেই বিশ্বের অনেক ক্লান্টের কাজ করে দিচ্ছে।

তাই আমি মনে করি আপনি যদি নিজের প্রতিভাকে সবার সামনে তুলে ধরতে চান তাহলে এই সেক্টরটাকে নিয়ে কাজ করতে পারেন।

২. ব্লগিং করে ইনকাম

অনলাইন ইনকাম জগতে ব্লগিং বা লেখালেখি করে আয় করা এখন জনপ্রিয়তার শীর্ষ। ইউটিউবের পরে সব থেকে বেশি ইনকাম করা যায় ব্লগিং করে।



ব্লগিং করে ইনকাম করতে হলে প্রথমেই আপনাকে একটি ব্লগার বা ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট লাগবে। যেখানে গুগলের নিয়ম-নীতি মেনে কন্টেন্ট পাবলিশ করতে হবে।

ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইটের জন্য ডোমেইন হোস্টিং কিনুন A TO Z IT host থেকে

যখন বেশি ভিজিটর আশা শুরু করবে তখন গুগল এডডসেন্সের জন্য আবেদন করে সাইট এপ্রুভ করাতে হবে।

সাইট এপ্রুভ হওয়ার পর গুগল এডডসেন্সের মাধ্যমে শুধু লেখালেখি করে মাসে বড় একটা অংকের টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

তবে ব্লগিং শুরু করার আগে অনলাইনে কিছু নামকরা লোকের কোর্স আছে। আমি মনে করি প্রথমে তাদের থেকে শিখে অভিজ্ঞ হয়ে কাজ করা উচিত ।

কারন ওয়েবসাইট দিয়ে এডডসেন্স এপ্রুভ করা খুব কঠিন একটা কাজ৷

১.ইউটিউব থেকে ইনকাম 

বন্ধুরা আমার পছন্দের সেরা ১০টি ইনকাম সাইটের মধ্যে ইউটিউব সবার সেরা। ইউটিউবের মাধ্যমে খুব সহজেই ইনকাম করা যায়।

আমার মতে, যদি অনলাইনে আয়ের একটা বড় স্থান তৈরি করতে চান তাহলে ইউটিউব আপনার জন্য  ভালো চয়েস হবে।

তবে ইউটিউব যেহেতু বিডিও শেয়ারিং সাইট  তাই আমি বলবো কাজে নামার আগে আপনি বিডিও এডিটিং, অডিও এডিটিংসহ কয়েকটা বিষয়ে ভালোভাবে অভিজ্ঞ হয়ে নেন।

আমি তো মনে করি ১টা বছর আপনার এডিটিং এ কাটানো উচিত। কারন আপনি যত সুন্দরবনের উপস্থাপনা নান্দনিকভাবে তুলে ধরতে পারবেন,আপনি ততই সফল হতে পারবেন।

একটা সময় ছিলো যখন চ্যানেল খুলেই ইনকাম করা যেতো,কিন্তু ২০২২ সালে এসে ইউটিউব এমন এমন আপডেট নিয়ে আসচ্ছে যার কারনে ইউটিউব কঠিন হয়ে পড়েছে।

ইউটিউবে ইনকাম করতে হলে ইউটিউবের কিছু ক্রাইটেরিয়া আছে যেগুলো ফুল-ফিল করতে হবে৷

ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজের ক্ষেত্রে শেষ ১২ মাসে ১ হাজার সাবস্ক্রাইব এবং ৪ হাজার ঘন্টা ওয়াচ-টাইম লাগবে।

এছাড়াও ইউটিউব সর্টসের মাধ্যমে যদি আপনি শেষ ৩ মাসের মধ্যে ১০ মিলিয়ন ভিউ এবং ১ হাজার সাবস্ক্রাইব আনতে পারেন তাহলেও চ্যানেল মনিটাইজ করা যাবে।

প্রিয় বন্ধুরা Health Cornars USA এর এই পোষ্টটি এই পর্যন্তই৷

এই পোষ্টটির মাধ্যমে আমি চেষ্টা করেছি অনলাইনে ইনকাম করার সঠিক পথ দেখাতে।

এরপরও যদি আপনার অনলাইনে ইনকাম বিষয়ক আরোও কিছু বিষয় জানার ইচ্ছে থাকে তাহলে নিচে কমেন্ট করে জানাতে পারেন ধন্যবাদ।

মোটা থেকে স্লিম হন

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *