No Widgets found in the Sidebar
কিভাবে মোটা হবেন ? মোটা হওয়ার কৌশল

কিভাবে মোটা হবেন ?  মোটা হওয়ার কৌশল



তিরিক্ত মোটা  হলে যেমন নিজের কাছে অস্বস্তি লাগে, ঠিক তেমনি অতিরিক্ত শুকনা হলেও দেখতে খারাপ লাগে।

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা মোটা হওয়ার জন্য অনেক কিছু ট্রাই করে। অনেকে মোটা হওয়ার ঔষধ খায়।

কিন্ত এগুলো স্বাস্থ্যের জন্য অনেক ক্ষতিকর। তবে এই পোষ্টের মাধ্যমে আজ আপনারা জানতে পারবেন কিভাবে প্রাকৃতিক উপায়ে ওজন বাড়ানো যায়।

 

প্রাকৃতিক উপায়ে মোটা হওয়ার ট্রিপস 

বন্ধুরা প্রতিটা সমস্যার পাশাপাশি তার সমাধানও রয়েছে। তাই প্রাকৃতিক উপায়ে মোটা হওয়ারও সহজ কৌশল রয়েছে।

তাই টেনশন না করে পোষ্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন। আমি শতভাগ বলতে পারি, আপনি যদি এই ট্রিপসগুলো পালন করেন ইনশাআল্লাহ্ আপনি মোটা হবেন।



১.ব্যায়াম করা

কি অবাক হচ্ছেন! ব্যায়াম করলে মোটা হয় নাকি? যারা মনে করেন ব্যায়াম করলে শুধু ওজন কমে – তাদের ধারণা মোটেও ঠিক নয়।

ওজন কমাতেও যেমন ব্যায়াম প্রয়োজন, ঠিক একইভাবে ওজন বাড়াতেও ব্যায়ামের প্রয়োজন রয়েছে।

তবে শুধু দৌড়াদৌড়ি করলেই ব্যায়াম হবে না, আমার মতে ব্যায়াম করার জন্য উপযুক্ত হবে জিমনেসিয়াম।

আবার যেই সেই জিমে গিয়ে আবার শরীরের ক্ষতি করবেন না। কিছুদিন আগে আমি নিজেও জিমে ভর্তি হইসিলাম।কিন্তু সেই জিমের ট্রেইনার আমাকে তো ট্রেইনই করলো না। এজন্য জিম চেঞ্জ করসি।

তবে আপনি যদি ভালো কোনো জিমের অভিজ্ঞ ট্রেইনার পান তাহলে আপনার জন্য অনেক ভালো হবে। কারন ট্রেইনার আপনার চেহারা দেখেই বুজে যাবে আপনার জন্য কেমন টাইপের ব্যায়ামের প্রয়োজন।

এছাড়াও আপনি বাড়ি বসেও ব্যায়াম করতে পারেন।

 

বার বার খাওয়ার অভ্যাস করা

বার বার খাওয়ার অভ্যাস প্রতিটা মানুষেরই করা উচিত। ওজন বৃদ্ধির জন্য ২ ঘন্টা পর পর বেশি বেশি খাবার অভ্যাস করতে হবে।

খাওয়ার রুটিনে সবসময় দুধ, ধই, ফল,ছানা, কলা, ডিম ইত্যাদি রাখতে হবে। এর মাধ্যমে আপনার শরীরে প্রচুর পুষ্টি হবে, যা আপনাকে দ্রুত মোটা করতে সহায়তা করবে।

 

বেশি ক্যালরি গ্রহণ

ওজন বৃদ্ধির জন্য শরীরের চাহিদার থেকে বেশি ক্যালরি নিতে হবে।

আপনি যদি দ্রুত ওজন বাড়াতে চান তাহলে দৈনিক ৬০০-৭০০ ক্যালরির বেশি গ্রহণ করতে হবে। এর ফলে আপনি দ্রুত মোটা হয়ে যাবেন।

তবে আমার মতে দৈনিক ৪০০-৫০০ ক্যালরি বেশি গ্রহণ করা উচিত। যেটা আপনাকে ধীরে ধীরে স্বাস্থ্যবান করে তুলবে।

 

কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার 

শরীরের ওজন বৃদ্ধির জন্য কার্বোহাইড্রেটের গুরুত্ব অনেক। খাবারের তালিকায় কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার রাখতে হবে।

ভাত ও রুটিতে প্রচুর পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট রয়েছে। ৩০ গ্রাম ভাতে কার্বোহাইড্রেট রয়েছে ২৩ গ্রাম এবং ৩০ গ্রাম আটায় কার্বোহাইড্রেট রয়েছে ২২ গ্রাম।

এছাড়াও ভুট্টা, মিষ্টি আলু, কলা, আপেল ইত্যাদিতে প্রচুর পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট রয়েছে।



কিসমিস খাওয়া 

প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে ১০-১২ টা কিসমিস একটা গ্লাসে ভিজিয়ে রাখবেন। পরদিন সকালে উঠে দেখবেন কিসমিস গুলো ফুলে উঠেছে।

ফুলে উঠা কিসমিস এবং পানি আপনি খেয়ে ফেলবেন।  এভাবে প্রতিদিন অভ্যাস করুন দেখবেন স্বাস্থ্যের অনেক উন্নতি ঘটবে।

কিসমিস কিন্তু অনেক উপকারী একটা ফল। এটা আপনার শরীরের অনেক সমস্যার সমাধান করতে সক্ষম।

আপনি জানলে অভাক হবেন, যারা যৌন সমস্যায় জর্জরিত তারা যদি ঠিক মতো কিসমিস খায় তাদের অনেক সমস্যা লাগব হবে।

 

ছোলা বুট

ছোলা বুট, ভিটামিন, খনিজ পদার্থ, ফাইবারে সমৃদ্ধ উৎস হিসেবে বিভিন্ন ধরনের স্বাস্থ্য উপকারীতা প্রধান করে থাকে।

এতে প্রায় সব ধরনের ভিটামিন রয়েছে। তবে ওজন নিয়ন্ত্রণের জন্যও ছোলা ভুট গুরুত্বপূর্ণ।

প্রতিদিন রাতে ১ কাপ ছোলা বুট ভিজিয়ে রাখবেন। সকালে উঠে ছোলা বুটের খোসা ছাড়িয়ে খাবেন। দেখবেন এভাবে খেলে কয়েকমাসের মধ্যে শরীনে আমূল পরিবর্তন ঘটবে।

 

পরিমিত ঘুম

সুস্বাস্থ্যের জন্য পরিমিত ঘুম দরকার। আপনি যদি খুব দ্রুত মোটা হতে চান তাহলে দৈনিক ৭-১০ ঘন্টা ঘুমান।

দেখবেন ১ মাসের মধ্যেই আপনি অনেক চেঞ্জ হয়ে যাবেন।

 

টেনশন মুক্ত থাকা

আপনি হয়তো জানেন না যারা দুঃশ্চিন্তা করে তাদের ওজন দ্রুত কমে। তাই সবসময় দুঃশ্চিন্তা মুক্ত থাকতে হবে।

 

ঘুমানের আগে পুষ্টিকর খাবার খাওয়া 

ঘুমানের আগে সবসময় চেষ্টা করবেন প্রচুর হাই ভিটামিন যুক্ত খাবার খেতে৷ বিশেষ করে দুধ ও মধুতো খেতেই হবে।

কারন দুধ ও মধুতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন রয়েছে যা আপনাকে দ্রুত স্বাস্থ্যবান হতে সাহায্য করবে।

 

প্রিয় বন্ধুরা, এই পোষ্টের মাধ্যমে আমি আপনাদের প্রাকৃতিক উপায়ে মোটা হওয়ার কৌশল সম্পর্কে অবগত করেছি।

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা দ্রুত মোটা হওয়ার জন্য ঔষধ খায়, যেটা স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতির কারন। এমন ভুল করা যাবে না।

মোটা হলে প্রাকৃতিক উপায়ে হওয়া উচিত তবে বেশি মোটা নয়। একটা কথা মনে রাখবেন, মোটা-চিকন কোনো বিষয় নয়- সুস্থ্যতাই প্রধান, ধন্যবাদ

আবুহাসান

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *