No Widgets found in the Sidebar
মোটা থেকে স্লিম হওয়ার কৌশল

মোটা থেকে স্লিম হওয়ার কৌশল 



আসসালামু আলাইকুম,

বন্ধুরা, বেশি চিকন হলেও সমস্যা এবং বেশি মোটাও ভালো নয়। তবে স্লিম থাকাটা শরীরের জন্য উপকারী।

এখন আমাদের মধ্যে  যারা মোটা আছেন তারা ভালো ভাবেই বুজেন মোটা শরীর কতটা জামেলার।

তবে আমরা অনেকই আছি যারা স্লিম হওয়ার জন্য না বুজে অনেক কাজ করে থাকি। যেটা স্বাস্থ্যের জন্য অনেক ক্ষতি হয়ে থাকে।

তবে এই পোষ্টের মাধ্যমে স্বাস্থ্যের ক্ষতি না হয় এমন উপায় দেখবো, যার মাধ্যমে আপনি স্লিম হবেন অনায়াসে।

দৌড়

বন্ধুরা  “দৌড়”  স্লিম হওয়ার জন্য অনেক উপকারী। কারন আপনি যখন দৌড়াবেন তখন আপনার শরীরের লবন,ক্ষতিকর পদার্থ, ক্ষতিকর ফ্যাট নির্গত হবে।

আর ক্ষতিকর ফ্যাট শরীর থেকে জ্বরে গেলে দীড়ে দীড়ে স্লিম হবেন। আমি নিজেও এই পদ্ধতিটা ব্যবহার করেছি।

তবে শুরুতেই জোরে দৌড়ানো যাবে না। কারন আগে যাদের দৌড়ানোর অভ্যাস নেই তারা জোরে দৌড়ালে শরীরের ক্ষতি হবে।

শুরুতে ধীরে ধীরে দৌড়াতে হবে। পরে দৌড়ের গতি বাড়াতে হবে।

কিভাবে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন

ব্যায়াম করা 

অনেকে ভাবে বেশি খেলে মোটা হয় – কথাটা ঠিক নয়। নিয়মিত ব্যায়াম বা দৌড়াদৌড়ি না করা,খাবার বেশি খাওয়ার কারনে মানুষের শরীরে মেদ বাড়ে এবং মোটা হয়।

এজন্য আপনি ঘরে বসে বা জিমনেশিয়ামে গিয়ে শারীরিক কসরত করতে পারেন।

যদি জিমনেশিয়ামে না যান,তাহলে ঘরে বসেই ব্যায়াম করতে পারেন।



ঘরে বসে দৈনিক কমপক্ষে ৩০টি পুশআপ দিন। এভাবে টানা ২ মাস দিতে থাকুন। দেখবেন একটা সময়ে এসে শরীরে আমূল-পরিবর্তন দেখতে পাবেন।

এছাড়াও পুশআপ কবজির জোর বাড়ায় এবং শরীরের জন্যও উপকারী।

খাওয়া নিয়ন্ত্রণ 

খাওয়া নিয়ন্ত্রন মানি দু-এক বেলা না খেয়ে থাকবেন- সেটা নয়। খাবার একবারে বন্ধ করা যাবে না। তবে খাবার পরিমান কমাতে হবে। আবার বেশি কমালেও সমস্যা।

ধরুন আপনি বর্তমানে ১০০ শতাংশ খাবার খান। আপনি তার থেকে ৩০ শতাংশ বাদ দিবেন। মানি প্রতিদিন ৮০ শতাংশ খাবার খাবেন।

এভাবে একটু একটু কমাবেন মানি খাবারের ভারসাম্য রাখবেন।

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা স্লিম হওয়ার জন্য রাতে খায় না। যেটা স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। এমন ভুল করা যাবে না।

কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার 

পরিমাণ মতো কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার খেলে শরীর সুস্থ থাকার পাশাপাশি ওজনের নিয়ন্ত্রণটাও থাকে আপনার হাতের মুঠোয়।

ডায়েট চলাকালীন সময়ে, ভাত, আলু, রুটি খেতে পারেন পরিমাণ মতো। কারন এই সকল কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার শরীরে থাকা ক্ষতিকর ফ্যাট কে নির্মূল করে।

পরিমাণ মতো ক্যালরি গ্রহণ



শরীর সুস্থ থাকতে ক্যালরির জুরি নেই। তবে সেই ক্যালরির পরিমাণ বেশি হয় তাহলে ভুড়ি বাড়তে থাকব তরতরিয়ে।

তবে একটা পুরুষের শরীরে দৈনিক সর্বোচ্চ ২০০০ ক্যালরির থাকা জরুরি।

এক্ষেত্রে মহিলাদের শরীরে ১০০০-১৫০০ ক্যালরি হলেই হয়।

প্রিয় ভিউয়ার্স, এই পোষ্টের মাধ্যমে আমি আপনাদের মোটা থেকে স্লিম হওয়ার বেষ্ট কৌশল সম্পর্কে জানানের চেষ্টা করেছি।

স্বাস্থ্য সম্পর্কে আমাদের সাইটে আরো অনেক পোষ্ট আছে। আপনার হাতে যদি সময় থাকে তাহলে পোষ্ট গুলো দেখতে পারেন।

ধন্যবাদ।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *